1. »
  2. ধর্ম

কুরআন সংরক্ষণে সাহাবী জায়েদ ইবনে সাবিতের ভূমিকা

প্রভাত ফেরী ডেস্ক রিপোর্ট মঙ্গলবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০৯:৩০ পিএম | আপডেট: মঙ্গলবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০৯:৩৩ পিএম

কুরআন সংরক্ষণে সাহাবী জায়েদ ইবনে সাবিতের ভূমিকা

প্রভাত ফেরী ডেস্ক: আল কুরআনকে বলা হয় পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ঠ গ্রন্থ। যা দীর্ঘ ২৩ বছর ধরে বিশ্বমানবতার মুক্তির দূত মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সাঃ) এর ওপর নাজিল হয়েছিল। কিন্তু পরবর্তী সময়ে কিভাবে এ কুরআনকে সংরক্ষন করা হয়েছে তা হয়তো অনেকেরই অজানা। আর এ সর্বশ্রেষ্ঠ কুরআনের ধারক, বাহক ও প্রচারক ছিলেন রাসুল সাঃ এর সাহাবীরা নিজেই। আর তাদের মধ্যে অন্যতম জায়েদ ইবনে সাবিত (রাঃ)।

আজ জানবো জায়েদ ইবনে সাবিত (রাঃ) এর সম্পর্কে

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়া সাল্লামের মদিনায় হিজরতের পর ১১ বছর বয়সে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে হজরত জায়েদ ইবনে সাবিত ইসলাম গ্রহণ করেন। তিনি মদিনার বনু নাজ্জার গোত্রে জন্ম গ্রহণ করেন।

ছোটবেলাতেই হজরত জায়েদ ইবনে সাবিত জ্ঞানচর্চায় বেশ মনোযোগি ছিলেন। বিশেষ করে ইসলাম গ্রহণের পর কুরআন মুখস্ত করাসহ ইলম অর্জনে তার আগ্রহ ছিল অনেক বেশি। কুরআন মুখস্তের প্রচেষ্টা ও ইলম অর্জনের আগ্রহ দেখে বিশ্বনবি তাঁকে কাতেবে ওহি তথা ওহি লেখকের মর্যাদা দেন। সে সময় থেকে আজও তিনি বিশ্বব্যাপী কাতেবে ওহি হিসেবে পরিচিত।

বিশ্বব্যাপী মুসলিম উম্মাহর কাছে আজ যে অবিকৃত ও অখণ্ড কুরআন রয়েছে, এ কুরআন প্রাপ্তিতে হজরত জায়েদ ইবনে সাবিতের অবদান সবচেয়ে বেশি। মাত্র ২২ বছর বয়সের জায়েদ পবিত্র কুরআনের আয়াত, সুরাগুলো সংরক্ষণ ও সংগ্রহে নিরলস কাজ করেছেন। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের কাছ থেকে তিনি পুরো কুরআন মুখস্ত করেন এবং বিশ্বনবির ইন্তেকালের বছর জায়েদ ইবনে সাবিত বিশ্বনবিকে দুইবার পুরো কুরআন পাঠ করে শোনান।

পবিত্র কুরআন সংকলনের জন্য হজরত উসমান রাদিয়াল্লাহু আনহুকে বলা জামেউল কুরআন। কুরআন বিশেষজ্ঞ ১২ সাহাবার সমন্বয়ে এক কমিটি গঠন করে পবিত্র কুরআন সংকলন চূড়ান্ত করেন। হজরত জায়েদ ইবনে সাবিত রাদিয়াল্লাহু আনহু সে বিশেষজ্ঞ কমিটির অন্যতম সদস্য ছিলেন।

কুরআন সংরক্ষণের অনন্য ভূমিকা পালনকারী হজরত জায়েদ ইবনে সাবিত ৪৫ হিজরিতে পবিত্র নগরী মদিনায় ইন্তেকাল করেন।

আল্লাহ তাআলা তাঁকে জান্নাতের সর্বোচ্চ মাকাম দান করুন। তাঁর নেক আমলের ফায়েজ ও বরকত মুসলিম উম্মাহকে দান করুন। আমিন।

ই-পেপার

আর্কাইভস সংবাদ

২২ ডিসেম্বর বিজয় দিবস কনসার্টে  সিডনি মাতাবেন সোলস, ওয়ারফেজ ও ঐশী
২২ ডিসেম্বর বিজয় দিবস কনসার্টে সিডনি মাতাবেন সোলস, ওয়ারফেজ ও ঐশী
অস্ট্রেলিয়ায় ইমিগ্রেশনের সম্ভাবনা: নতুন পেশার তালিকা
অস্ট্রেলিয়ায় ইমিগ্রেশনের সম্ভাবনা: নতুন পেশার তালিকা
সংযুক্ত আরব আমিরাতের স্থায়ী বসবাসের সুযোগ
সংযুক্ত আরব আমিরাতের স্থায়ী বসবাসের সুযোগ
আমেরিকার ভিসার জন্য নতুন নিয়ম চালু
আমেরিকার ভিসার জন্য নতুন নিয়ম চালু
ব্যবসায়ীদের জন্য নিউজিল্যান্ডে অভিবাসনের সুবর্ণ সুযোগ ‘অন্ট্রেপ্রনার ওয়ার্ক ভিসা’
ব্যবসায়ীদের জন্য নিউজিল্যান্ডে অভিবাসনের সুবর্ণ সুযোগ ‘অন্ট্রেপ্রনার ওয়ার্ক ভিসা’
অস্ট্রেলিয়ার স্কিলড মাইগ্রেশন ভিসার পয়েন্ট পদ্ধতিতে আসছে পরিবর্তন
অস্ট্রেলিয়ার স্কিলড মাইগ্রেশন ভিসার পয়েন্ট পদ্ধতিতে আসছে পরিবর্তন
যে সব কারণে বাতিল হতে পারে আপনার অস্ট্রেলিয়ান নাগরিকত্ব
যে সব কারণে বাতিল হতে পারে আপনার অস্ট্রেলিয়ান নাগরিকত্ব
নুসরাতের জানাজায় ও সেলফির হিড়িক !
নুসরাতের জানাজায় ও সেলফির হিড়িক !
অবসরে গেলে দলের প্রধান কে হবেন, জানালেন প্রধানমন্ত্রী
অবসরে গেলে দলের প্রধান কে হবেন, জানালেন প্রধানমন্ত্রী
সামর্থ্যবান ব্যাবসায়ীদের জন্য অস্ট্রেলিয়ার বাসিন্দা হওয়ার সুযোগ
সামর্থ্যবান ব্যাবসায়ীদের জন্য অস্ট্রেলিয়ার বাসিন্দা হওয়ার সুযোগ
রোগীদের সাথে যৌন অপরাধের দায়ে সিডনিতে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত চিকিৎসক অভিযুক্ত 
রোগীদের সাথে যৌন অপরাধের দায়ে সিডনিতে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত চিকিৎসক অভিযুক্ত 
ব্রিসবেনে সড়ক দূর্ঘটনায় বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত আইটি প্রফেশনাল  নিহত
ব্রিসবেনে সড়ক দূর্ঘটনায় বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত আইটি প্রফেশনাল নিহত
শেখ হাসিনার সফর উপলক্ষে অস্ট্রেলিয়া আওয়ামী লীগের মত বিনিময়
শেখ হাসিনার সফর উপলক্ষে অস্ট্রেলিয়া আওয়ামী লীগের মত বিনিময়
ভিসা সংক্রান্ত প্রচলিত কিছু জালিয়াতি
ভিসা সংক্রান্ত প্রচলিত কিছু জালিয়াতি
অস্ট্রেলিয়ায় অভিবাসনঃ  বর্তমান সময়ের সমস্যা ও সম্ভাবনা
অস্ট্রেলিয়ায় অভিবাসনঃ বর্তমান সময়ের সমস্যা ও সম্ভাবনা