সিডনী শুক্রবার, ১৯শে জুলাই ২০২৪, ৪ঠা শ্রাবণ ১৪৩১


মাঝ আকাশে বিমানে নগ্ন হয়ে যাত্রীর দৌড়াদৌড়ি, ক্রুকে মারধর


প্রকাশিত:
১১ জুন ২০২৪ ০৪:৫৫

আপডেট:
১৯ জুলাই ২০২৪ ২১:৪৫


উড়ন্ত বিমানে ভরপুর যাত্রীদের সামনে নগ্ন হয়ে গিয়েছিলেন এক যাত্রী। তার উদ্দেশ্য ছিল বিমানটিকে গন্তব্যের দিকে যেতে না দিয়ে আবারও প্রারম্ভিক স্টেশনে ফিরে যেতে বাধ্য করা।

সেটা করতে তিনি অবশ্য সফল হয়েছেন। তবে অবতরণের পরপরই পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছে। খবর ইনডিপেনডেন্টের।

ঘটনাটি ঘটেছে অস্ট্রেলিয়ার অভ্যন্তরীণ একটি ফ্লাইটে। ফ্লাইটটি দেশটির পার্থ থেকে মেলবোর্নের দিকে যাচ্ছিল। সেই ফ্লাইটেই এক যাত্রী দুই সারি সিটের মাঝে গিয়ে কাপড়চোপড় খুলে নগ্ন হয়ে পড়েন এবং পাইলট কেবিনের দিকে এগিয়ে যেতে থাকেন।

এ সময় একজন ফ্লাইট অ্যাটেনডেন্ট তাকে বাধা দিতে চাইলে সেই যাত্রী তাকেও মারধর করে শুইয়ে ফেলেন। পরে অপর এক যাত্রী সেই নগ্ন ব্যক্তিকে পাকড়াও করেন।

আরও পড়ুন:
ফাঁসি হয় হোক, সব বলে দেব: আমানুল্লাহ
ফাঁসি হয় হোক, সব বলে দেব: আমানুল্লাহ

পুলিশ জানিয়েছে, সোমবার রাতে অস্ট্রেলিয়ার ভার্জিন অস্ট্রেলিয়ার ফ্লাইট ভিএ-৬৯৬ পার্থ থেকে মেলবোর্নের দিকে যাত্রা করেছিল। সাড়ে তিন ঘণ্টার যাত্রায় উড্ডয়নের কিছু সময় পরই সেই যাত্রী বিমানটির দুই সারি সিটের মাঝখানে এসে কাপড়চোপড় খুলে ফেলেন এবং পাইলট কেবিনের দিকে যেতে থাকেন এবং এ সময় তিনি এক ফ্লাইট অ্যাটেনডেন্টকে মারধর করে শুইয়ে ফেলেন।

পরে এক যাত্রী সেই ব্যক্তিকে পাকড়াও করেন। কিন্তু তাতে অবশ্যই ফ্লাইটটি মেলবোর্নে যেতে পারেনি। নিরাপত্তার স্বার্থে ভার্জিন অস্ট্রেলিয়ার সেই ফ্লাইট পার্থে ফিরে আসে। সেখানেই তাকে পুলিশ গ্রেফতার করে এবং হাসপাতালে নেয় তার মানসিক অবস্থা যাচাই করার জন্য। ঠিক কী কারণে ওই ব্যক্তি এমন আচরণ করেছেন, তা জানা যায়নি।

ভার্জিন অস্ট্রেলিয়া জানিয়েছে, ফ্লাইট ভিএ-৬৯৬ একজন ঝামেলা সৃষ্টিকারী যাত্রীর কারণে পার্থে ফিরে আসে। সেই যাত্রীকে পাকড়াও করার জন্য অস্ট্রেলিয়ার ফেডারেল পুলিশ বিমানবন্দরে মজুত ছিল।

পুলিশ জানিয়েছে, তারা সেই যাত্রীকে গ্রেফতার করেছে। তার বিরুদ্ধে ফ্লাইটে নগ্ন হয়ে অন্য যাত্রীদের জন্য ঝামেলা সৃষ্টি করা এবং ফ্লাইট অ্যাটেনডেন্টকে মেরে শুইয়ে ফেলার অভিযোগ আনা হয়েছে।

অস্ট্রেলিয়ার ফেডারেল পুলিশ এক বিবৃতিতে বলেছে, অফিসাররা একজনকে গ্রেফতার করেছে, যিনি কিনা সেই বিমানের মাঝখানে নগ্ন হয়ে দৌড়ান এবং একজন ক্রুকে মেরে মেঝেতে ফেলে দিয়েছিলেন। ওই ব্যক্তিকে মানসিক স্বাস্থ্য মূল্যায়নের জন্য হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। তিনি বর্তমানে হাসপাতালেই আছেন।


বিষয়:


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Developed with by
Top