সিডনী শুক্রবার, ১৯শে জুলাই ২০২৪, ৪ঠা শ্রাবণ ১৪৩১


সিডনিতে চট্টগ্রাম ক্লাব অস্ট্রেলিয়া আয়োজিত ঐতিহ্যবাহী মেজবান


প্রকাশিত:
৩১ মে ২০২৪ ১৫:৩৪

আপডেট:
১৯ জুলাই ২০২৪ ২০:২৬

 

নাইম আবদুল্লাহ: টাইটেল স্পনসর রেইন এন্ড হর্ন ইংলেবার্ন এবং এক্সপার্ট ফিনান্স এন্ড একাউন্টিং এর পৃষ্টপোষকতায় চট্টগ্রাম ক্লাব অস্ট্রেলিয়া (সিসিএ) আয়োজন করে ঐতিহ্যবাহী মেজবান। সিডনির মিন্টোতে গত ২৬ মে (রবিবার) বিকাল ৫ টায় শুরু হয়ে মেজবান চলে মধ্যরাত পর্যন্ত। মেজবানএর বিশেষ আকর্ষণ ছিল চট্টগ্রামএর ঐতিহ্যবাহী মেজবানি গরুর গোস্ত, নলা, ছোলা ডাল, ভেড়ার গোস্ত, মুরগি এবং সাদা ভাত। অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী বাংলাদেশীদের পাশাপাশি অন্যান্য দেশী মিলে পাঁচ হাজারের বেশী লোকের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ এবং বাংলাদেশী কায়দার আপ্পায়ন ছিল নজর কারার মত।

বরাবরের মতো এবারও সিসিএ মেজবানএ কোনো প্রবশেষ মূল্য রাখা হয়নি, অর্থাৎ সিসিএ মেজবানএ জন্য বিনামূল্যে প্রবেশ পত্র বিতরণ করা হয়। তবে অনুষ্ঠানের শৃঙ্খলার জন্য অনলাইনএ রেজিস্ট্রেশন বাধ্যতামূলক ছিল।

পবিত্র কোরান থেকে তেলওয়াত দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। তারপর সমবেত কণ্ঠে বাংলাদেশ এবং অস্ট্রেলিয়াএর জাতীয়সংগীত পরিবেশন করা হয়। সিসিএ সেক্রেটারি সাদীয়া হক এর প্রাণবন্ত সঞ্চলনায় এবং স্থানীয় বাংলাদেশী শিল্পীদের পরিবেশনায় মনোমুগ্ধকর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ছিল উপভোগ্য।

সিসিএ সভাপতি ডঃ শেখ সালাউদ্দিন তার স্বাগত বক্তব্যে সকলকে অভিনন্দন জানান। তিনি অনুষ্ঠানে আগত বিশেষ অথিতীদের পরিচয় করিয়ে দেন এবং সিসিএ বিভিন্ন জনসেবা মূলক কর্মকান্ড তুলে ধরেন।

সিসিএ মেম্বারদের পক্ষে সৈয়দ আকরাম উল্লাহ অর্থনৈতিক বিবরণী উপস্থাপন করেন এবং মেইন স্পনসরদের পরিচয় করিয়ে দেন। রেইন এন্ড হর্ন ইংলেবার্ন এবং এক্সপার্ট ফিনান্স এন্ড একাউন্টিং ছাড়া অন্নান্য স্পনসরদের মধ্যে নিরালা হোল্ডিংস, ফার্ম ফিনানজ, ইনভেস ট্যাক্স, গুজমান ইঁ গোমেজ, ই এস ওয়াই গ্লোবাল, চিলি বেসিল থাই রেস্টুরেন্ট, মেজবানি রেস্টুরেন্ট এন্ড ক্যাটারিং এবং সৈয়দ ব্রাদার্স সুপার শপ ছিল অন্যতম।

ফয়েজ মোহাম্মদএর সম্পদনায় মেজবান উপলক্ষে এক আকর্ষণীয় ম্যাগাজিন প্রকাশ করা হয়। অস্ট্রেলিয়া প্রবাসীদের পাশাপাশি নতুন প্রজন্মের শিশু কিশোরদের লেখা গল্প, কবিতা এবং চিত্রাঙ্কন প্রকাশিত করা হয়। সিডনি প্রবাসী স্বপ্ন ব্যান্ড সহ স্থানীয় শিল্পীরা গান ও নাচ পরিবেশন করেন।

সিডনিতে একসাথে এতো লোকের খাবার রান্না করার মতো দুস্সাহসীক কাজটি সম্পন্ন করেন মেজবানি রেস্টুরেন্টএর স্বত্তাধিকারী এবং মেইন শেফ মাসুম রানা এবং তার দল। আয়োজকরা জানান, তারা প্রথমে তিন হাজার অতিথির জন্য মেজবানির আয়োজন করলেও পরবর্তীতে সবার সতস্ফুর্ত অংশগ্রহণে পাঁচ হাজারেরও বেশী অতিথিদের অ্যাপায়ন করতে সমর্থ হন।


বিষয়:


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Developed with by
Top