সিডনী রবিবার, ৩রা মার্চ ২০২৪, ২০শে ফাল্গুন ১৪৩০


লঘুচাপের আভাস সাগরে, তাপমাত্রা বাড়ার সম্ভাবনা


প্রকাশিত:
২৫ নভেম্বর ২০২৩ ১৪:২০

আপডেট:
৩ মার্চ ২০২৪ ১৪:০৫


রাজধানীসহ সারা দেশে শীতের আমেজ টের পাওয়া যাচ্ছে বেশ কিছুদিন ধরেই। অনেক জায়গায় কুয়াশা ও শিশিরের দেখাও মিলছে। দুপুরের দিকে সূর্যের উত্তাপ থাকলেও দিনের কোনো কোনো সময় আকাশ কিছুটা মেঘাচ্ছন্ন থাকছে। ঢাকায় ভোরে ও রাতে বইছে হিমেল বাতাস।


সব মিলিয়ে ধীরে ধীরে তাপমাত্রা কমছে, এগিয়ে আসছে শীতকাল।
তবে এ মাসের শেষের দিকে সাগরে একটি লঘুচাপ সৃষ্টির আভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। ফলে এ সময় তাপমাত্রা আবার কিছুটা বাড়তে পারে। চলতি মাসের শেষাংশে ও আগামী মাসের শুরুর দিকে কিছুদিন তাপমাত্রা বেশি থাকতে পারে।


আবহাওয়াবিদরা বলছেন, ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহের শেষ দিকে শীতের অনুভূতি বাড়তে পারে।
আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, আগামী সোমবারের (২৭ নভেম্বর) মধ্যে দক্ষিণ আন্দামান সাগর ও আশপাশের এলাকায় একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হতে পারে। পরবর্তী সময়ে তা আরো ঘনীভূত হয়ে লঘুচাপটি নিম্নচাপ বা ঘূর্ণিঝড়েও রূপ নিতে পারে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ মো. ওমর ফারুক গতকাল কালের কণ্ঠকে বলেন, ২৭ নভেম্বরের মধ্যে সাগরে একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হতে পারে।


লঘুচাপ হলে তা পরবর্তী সময়ে নিম্নচাপ ও ঘূর্ণিঝড়েও রূপ নিতে পারে। লঘুচাপ হলে এবং তা থেকে নিম্নচাপ বা ঘূর্ণিঝড় হলে তাপমাত্রা কিছুটা বাড়তে পারে। সে ক্ষেত্রে ডিসেম্বর মাসের শুরুর কয়েক দিন পর্যন্ত এর প্রভাব (তাপমাত্রা বেশি) থাকতে পারে। এরপর শীতের অনুভূতি বাড়তে পারে।
এদিকে কানাডার সাসকাচোয়ান বিশ্ববিদ্যালয় আবহাওয়া ও জলবায়ু বিষয়ক পিএইচডি গবেষক মোস্তফা কামাল পলাশ জানিয়েছেন, বঙ্গোপসাগরে আবারও একটি ঘূর্ণিঝড় সৃষ্টির প্রবল আশঙ্কা রয়েছে ২৬ নভেম্বর থেকে ৩ ডিসেম্বরের মধ্যে।


সম্ভাব্য ঘূর্ণিঝড়টি সর্বশেষ দুটি ঘূর্ণিঝড় (হামুন ও মিধিলি) অপেক্ষা বেশি শক্তিশালী হতে পারে।
মোস্তফা কামাল বলেন, আগামী ২৫ থেকে ২৮ নভেম্বরের মধ্যে ভারতের আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপের আশপাশে লঘুচাপ সৃষ্টির প্রবল আশঙ্কা রয়েছে। লঘুচাপটি নিম্নচাপে পরিণত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে ২৮ থেকে ২৯ নভেম্বরের মধ্যে। ২৯ থেকে ৩০ নভেম্বরের মধ্যে তা গভীর নিম্নচাপে পরিণত হতে পারে। পূর্ণাঙ্গ ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়ে তা ১ থেকে ২ ডিসেম্বরের মধ্যে বাংলাদেশের বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের উপকূলে এবং মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের মধ্যবর্তী কোনো এলাকার ওপর দিয়ে তা স্থলভাগে আঘাত করতে পারে।

এদিকে আজ শনিবারের পূর্বাভাসে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারা দেশের আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। অপরিবর্তিত থাকতে পারে রাত ও দিনের তাপমাত্রা।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, গতকাল শুক্রবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল কক্সবাজারের টেকনাফে, ৩১.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায়, ১৪.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।


বিষয়:


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Developed with by
Top