সিডনী বুধবার, ১৫ই জুলাই ২০২০, ১লা শ্রাবণ ১৪২৭


করোনায় হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনের বন্ধের নির্দেশ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার


প্রকাশিত:
২৬ মে ২০২০ ১৫:২৫

আপডেট:
১৫ জুলাই ২০২০ ১৭:১৬

 

প্রভাত ফেরী: করোনাভাইরাস মোকাবেলায় হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনের পরীক্ষামূলক ব্যবহার আপাতত বন্ধ করলো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা(ডাব্লিউএইচও)। এই ওষুধটি বেশ কিছু দেশে পরীক্ষামূলকভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে। পূর্বসতর্কতার অংশ হিসেবেই তা বন্ধ করা হলো।

গত সপ্তাহে দি ল্যান্সেটে একটি প্রকাশনা সামনে আসে। সেখানে নির্দেশ করা হয় যে, এই ওষুধ কোভিড-১৯ রোগীদের শরীরে প্রয়োগ করলে তাদের মৃত্যুর আশঙ্কা বেড়ে যায়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধার টেড্রস অ্যাধানম গ্যাব্রিয়েসুস এক অনলাইন প্রেস কনফারেন্সে সোমবার এই তথ্য জানান।

গেব্রিয়েসুস বলেন, কোভিড-১৯ রোগীদের ক্ষেত্রে হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনের প্রয়োগ কতটা নিরাপদ, তার পর্যালোচনা চলছে, তার আগ পর্যন্ত বিশ্ব সংস্থার নির্বাহীরা এই ওষুধটির পরীক্ষামূলক ব্যবহার স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে কোভিড-১৯ চিকিৎসায় বিশ্বে অনুমোদিত অন্য যেসব ওষুধের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ চলছে, তা চলবে বলে জানান তিনি।

করোনার চিকিৎসায় বিভিন্ন দেশে পরীক্ষামূলক ম্যালেরিয়ার ওষুধ হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের প্রয়োগ শুরু হয়েছিল। তবে এই ওষুধ সেবনে অনেকের হৃদস্পন্দনে গুরুতর অস্বাভাবিকতা দেখা দিতে পারে বলে যুক্তরাষ্ট্রের ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা এফডিএ সতর্কবার্তা দিয়েছিল।

ল্যান্সেটের এক গবেষণায় বলা হয়, এই ওষুধ খুবই ভয়াবহ পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া তৈরি করতে পারে, বিশেষ করে হৃদপিণ্ডের অস্বাভাবিক গতি তৈরি করতে পারে। শত শত হাসপাতালের ৯৬,০০০ রোগীর পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায়, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কেউই এই ওষুধে উপকৃত হয়নি। সোমবার টেড্রস বলেন, তবে এটা অটোইমিউন সমস্যা ও ম্যালেরিয়ার নির্মূলে বেশ কার্যকর।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান বিজ্ঞানী সৌম্য সোয়ামিনাথান বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা শুধুমাত্র এই ওষুধের উপস্থিতি ও অনুপস্থিতির প্রভাব পর্যবেক্ষণ করে পরীক্ষণ আপাতত বন্ধ করেছে। আমরা শুধুই পূর্বপ্রস্তুতির ভিত্তিতে পদক্ষেপ নিচ্ছি। ডাব্লিউএইচও এমার্জেন্সি চিফ মিকাইল রায়ান যোগ করেন, তাছাড়া সংক্রমণের গতি কমে যাওয়ায় যেসব দেশ বিধি-নিষেধ শিথিল করেছে, সেখানে আবারও করোনাভাইরাসের বিস্তারের ঝুঁকি রয়েছে। সবাইকে তাই খুবই সতর্ক থাকতে হবে।

এর আগে ইউরোপীয় ইউনিয়নের ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থাও ক্লোরোকুইন ও হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার বিষয়ে সতর্ক করে বিবৃতি দেয়।


বিষয়: করোনা


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top