সিডনী রবিবার, ৩রা জুলাই ২০২২, ১৯শে আষাঢ় ১৪২৯


মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে ঈদ উদযাপন, মক্কা-মদীনায় মুসল্লিদের ঢল


প্রকাশিত:
২ মে ২০২২ ২২:১৮

আপডেট:
৩ জুলাই ২০২২ ১৫:০৬

সৌদি আরবসহ বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশে সোমবার পবিত্র র্ঈদুল ফিতর উদযাপিত হয়েছে। করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের দুই বছর পর মক্কার মসজিদুল হারাম ও মদীনার মসজিদে নববীতে স্বাভাবিকভাবে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ বছর পবিত্র দুই মসজিদে মুসুল্লিদের ব্যাপক সমাগম চোখে পড়েছে।

সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ ও মক্কার গভর্নর মসজিদুল হারামে ঈদের নামাজ আদায় করেছেন।

অপরদিকে মসজিদে নববীতে ঈদের নামাজ আদায় করেছেন দেশটির ক্রাউন প্রিন্স ও মদীনার গভর্নর মোহাম্মদ বিন সালমান এবং মদীনার ডেপুটি গভর্নর প্রিন্স সৌদ বিন খালিদ আল ফয়সাল।

দেশটির ঐতিহাসিক কিবলাতাইন মসজিদ ও মসজিদে কুবায়ও যথারীতি ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হয়।

সংযুক্ত আরব আমিরাত ও মধ্যপ্রাচ্যের অন্য দেশগুলোতেও সোমবার ঈদুল ফিতরের জামাতে আগের সেই প্রাণচাঞ্চল্য দেখা যায়। একইসাথে ব্রিটেন, ফ্রান্স, যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার মুসলিমরা আনন্দ-উদ্দীপনার সাথে ঈদ উদযাপন করেছে।

মধ্যপ্রাচ্যের মতো ইন্দোনেশিয়াতেও সোমবার ঈদ উদযাপন করেছেন সেখানকার মুসলিমরা। দেশটির সর্ববৃহৎ ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে রাজধানীর জাকার্তায়। এই দেশটিতেও গত দুই বছর করোনার কারণে ঈদের জামাতে নিষেধাজ্ঞা ছিল।

ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও মহাসমারোহের সাথে ঈদ উদযাপন করেছেন ফিলিস্তিনিরা। হাজার হাজার মুসলিম ইসলামের প্রথম কিবলা মসজিদুল আকসায় ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করেছেন। দেশটির প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস দেশের জনগণ, আরব ও মুসলিম বিশ্বকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

সোমবার ঈদ উদযাপিত হয়েছে তুরস্কেও। তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান তার দেশের জনগণ ও ইসলামী বিশ্বকে ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

এরদোগান তার শুভেচ্ছাবার্তায় বলেছেন, ‘দুই ঈদ আমাদের ঐক্য, সংহতি ও ভ্রাতৃত্ব নবায়নের দিন। ঈদের দিন এতিম, অসহায়, প্রয়োজনগ্রস্ত ও মজলুমদের সাহায্য করুন।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমরা অন্য কাউকে আমাদের মধ্যে বিভক্তি করার ও বিরুদ্ধ মনোভাপন্ন বানানোর অনুমতি দেব না।’

এদিকে তুরস্কের ইস্তাম্বুলের ঐতিহাসিক আয়া সোফিয়া মসজিদে হাজার হাজার মুসুল্লি পবিত্র ঈদুল ফিতরের নামাজে অংশ নিয়েছেন।

সোমবার ইস্তাম্বুলের পাশাপাশি তুরস্কের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে মুসুল্লিরা এখানে নামাজ আদায় করতে আসেন। এ দিন সকাল থেকেই তারা এখানে আসতে থাকেন।

তুর্কি প্রেস জানায়, শুধু তুরস্ক নয়; বরং বাইরের বিভিন্ন দেশ থেকেও অনেক মুসুল্লি আয়া সোফিয়া গ্র্যান্ড মসজিদে ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায়ের উদ্দেশে আগমন করেন।

দেশী-বিদেশী মুসুল্লিদের উৎসবমুখর উপস্থিতিতে আয়া সোফিয়া ও এর আশপাশ কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে ওঠে।


বিষয়:


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top