সিডনী বৃহঃস্পতিবার, ৩০শে জুন ২০২২, ১৬ই আষাঢ় ১৪২৯


ভারতে অগ্নিপথ প্রকল্পের বিরুদ্ধে বিক্ষুব্ধ জনতা


প্রকাশিত:
২১ জুন ২০২২ ০৯:১৯

আপডেট:
৩০ জুন ২০২২ ২২:১৩

 

শুক্রবার (১৭ জুন) প্রতিবাদের তৃতীয় দিনে বিহার, উত্তর প্রদেশ, হরিয়ানা এবং পশ্চিমবঙ্গ ও মধ্যপ্রদেশে ‘অগ্নিপথ’ এর বিরুদ্ধে পথে নামে বিক্ষুব্ধ জনতা।

সংবাদ সংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, সেকান্দারাবাদ রেলওয়ে স্টেশনে প্রতিবাদ বড় ধরনের সহিংসতায় রূপ নিলে পুলিশ ফাঁকা গুলি ছোড়ে। এসময় রেললাইনে নেমে ট্রেন আটকে দেয় বিক্ষুব্ধ জনতা। তারা তিনটি ট্রেনে আগুন ধরিয়ে দেয়। এসময় স্টেশনে নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যদের চেয়ে প্রতিবাদকারীরা সংখ্যায় অনেক বেশি ছিল।

স্টেশনের কর্মকর্তা (এসি পাওয়ার কার মেকানিক) সুমন কুমার শর্মা এসময় ঘটনাস্থলেই ছিলেন। তিনি ভয়ংকর এ আন্দোলনে ভীত ও সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছিলেন যখন প্রতিবাদকারীরা ট্রেনে ভাঙচুর শুরু করে। অন্তত ৫ হাজার মানুষ এসময় রেলস্টেশনে জড়ো হয় বলে এনডিটিভিকে জানান সুমন।

বিহারে তৃতীয় দিনের বিক্ষোভে উপপ্রধানমন্ত্রী রেনু দেবীর ওপর হামলা হয়। পাটনায় গিয়ে তিনি বলেন, এমন সহিংস আচরণ সমাজের জন্য ভয়াবহ। তিনি বলেন, আন্দোলনকারীদের বোঝা উচিত এতে সমাজের ক্ষতি হচ্ছে।

জম্মু তায়ি এক্সপ্রেসের দুইটি বগিতে আগুন দিয়ে সম্পূর্ণ পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে বিহারের সমস্তিপুর জেলায়। তবে এখানে কেউ আহত হননি। লক্ষিসরাইতে বিজেপির একটি অফিসেও হামলা হয়। এছাড়া ইসলামপুর হাতিয়া এক্সপ্রেসের তিনটি এসি বগি সম্পূর্ণ পুড়িয়ে দেয় জনতা।

এর আগে মঙ্গলবার (১৪ জুন) ভারত সরকারের পক্ষ থেকে অগ্নিপথের ঘোষণা দেন সেনাবাহিনী প্রধান। ভারত সরকারের অগ্নিপথ প্রকল্প সম্পর্কে জানিয়ে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংও বলেন, ‘এ সিদ্ধান্ত ঐতিহাসিক।' দুই সপ্তাহ আগেই এই প্রকল্পের কথা প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়েছিলেন তিন বাহিনী প্রধান।

মঙ্গলবার এই প্রকল্পের নাম প্রকাশ্যে এলো। নতুন ‘অগ্নিপথ’ প্রকল্পে সেনাবাহিনীর সদস্যদের নিয়োগ করা হবে চার বছরের জন্য। খবর এনডিটিভির।

সাড়ে ১৭ বছর থেকে ২১ বছর বয়সী ৪৫ হাজার ভারতীয় এই প্রকল্পের অধীনে কাজের সুযোগ পাবেন ভারতীয় সেনাবাহিনীতে। চাকরির সময়সীমা শেষে ১১ থেক ১২ লাখ টাকা পাবেন তারা। তবে তারা কেউ পেনশন পাবেন না। অগ্নিপথে নারীরাও থাকবেন বলে জানিয়েছেন নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল আর হরি কুমার।

এ সেনাদের ২৫ শতাংশ সেনাবাহিনীতে নিয়মিত সৈন্য হিসেবে যোগ দেবেন। যদি অগ্নিপথ সফল হয় তবে তা সরকারের খরচ অনেক কমিয়ে আনবে।

সেনাবাহিনীতে চার বছরের মেয়াদে ছয় মাসের প্রশিক্ষণ পাবেন এই সেনা জওয়ানরা। তাদের মাসে ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকা বেতন এবং অন্যান্য ভাতা দেয়া হবে। সূত্রের খবর, এ প্রকল্পটি উচ্চস্তরের বিভিন্ন মহলে সমালোচিত হয়েছে। এমনকি এই প্রকল্প সেনাবাহিনীর দেশভক্তি এবং পেশাদারিত্বে প্রভাব ফেলতে পারে বলেও আশঙ্কা করছেন অনেকে।


বিষয়:


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top