সিডনী মঙ্গলবার, ২৩শে এপ্রিল ২০২৪, ১০ই বৈশাখ ১৪৩১


কৃষক নিহত: ‘দিল্লি চলো’ রোডমার্চ ২ দিনের জন্য স্থগিত


প্রকাশিত:
২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১৫:৩২

আপডেট:
২৩ এপ্রিল ২০২৪ ২১:১২


ভারতে 'দিল্লি চলো' বিক্ষোভে পুলিশের সঙ্গে সংঘাতে এক কৃষক নিহত হয়েছেন। এ ঘটনার জেরে রোডমার্চ দুই দিনের জন্য স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছে কৃষক ইউনিয়ন।


আজ বৃহস্পতিবার এই তথ্য জানিয়েছে ভারতের সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

সর্বশেষ খবর দ্য ডেইলি স্টার বাংলার গুগল নিউজ চ্যানেলে।
কৃষকদের ইউনিয়ন সর্বভারতীয় কৃষক সভা (এআইকেএস) অভিযোগ করেছে, পুলিশি অভিযানে প্রাণ হারিয়েছেন শুভ করণ সিং (২৩)। গতকাল সন্ধ্যায় হরিয়ানার খানাউরি সীমান্তে এ ঘটনা ঘটেছে বলে তারা দাবি করে।

তবে হরিয়ানা পুলিশ এই দাবি অস্বীকার করেছে।


এ ঘটনার জেরে দিল্লি অভিমুখে যাত্রা দুই দিনের জন্য স্থগিত করেছেন কৃষকরা। তবে সীমান্তে বসে বিক্ষোভ অব্যাহত রাখবেন তারা।


আহত শুভ করণ সিংকে পাতিয়ালার এক হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে এক ডাক্তার জানান, তিনি গুলির আঘাত পেয়েছেন। তার মরদেহ ময়না তদন্তের অপেক্ষায় রয়েছে।


কৃষকদের রোডমার্চ থামাতে ব্যারিকেড তৈরি করেছে পুলিশ। ছবি: রয়টার্স
কৃষকদের রোডমার্চ থামাতে ব্যারিকেড তৈরি করেছে পুলিশ। ছবি: রয়টার্স
পাতিয়ালার রাজেন্দ্র হাসপাতালের সিনিয়র মেডিকেল অফিসার ড. রেখি বলেন, 'খানাউরি থেকে তিন রোগী আমাদের এখানে এসেছেন। তাদের মধ্যে একজনের মৃত্যু হয়েছে। বাকি দুইজনের অবস্থা স্থিতিশীল। ধারণা করা হচ্ছে তারা গুলির আঘাত পেয়েছেন। তবে এটা এখনো নিশ্চিত নয়।'

'নিহত ব্যক্তির মাথায় গুলির আঘাত ছিল। কিন্তু ময়নাতদন্ত ছাড়া বুলেটের আকার ও অন্যান্য বিস্তারিত তথ্য জানা সম্ভব নয়', যোগ করেন তিনি।

কৃষকরা জানান, সীমান্তে বসানো ব্যারিকেড পার হওয়ার চেষ্টা চালালে হরিয়ানা পুলিশ তাদের দিকে টিয়ার গ্যাস শেল ছুড়ে মারেন। সরকারের সঙ্গে আলোচনা ব্যর্থ হওয়ার পর গতকাল থেকে রোডমার্চ আবারও চালুর সিদ্ধান্ত নেয় কৃষক ইউনিয়নগুলো। চতুর্থ দফার আলোচনা শেষে দুই পক্ষে একমত হতে পারেনি।

হরিয়ানা পুলিশ মৃত্যুর ঘটনা অস্বীকার করেছে। এক্সে প্রকাশিত পোস্টে পুলিশ জানায়, 'আমাদের হাতে যা তথ্য আছে, সে অনুযায়ী আজ কোনো কৃষক মারা যায়নি। এটা শুধুই গুজব। তবে দুই পুলিশ সদস্য ও এক বিক্ষোভকারী দাতা সিং-খানোরি সীমান্তে আহত হয়েছেন এবং তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।'

অপরদিকে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ভগবন্ত মান মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন। সাংবাদিকদের তিনি জানান, 'আমি এ ঘটনা শোনার পর এবং ভিডিওটি দেখার পর আমার গায়ে কাঁটা দিয়েছে। আমি খুবই দুঃখ পেয়েছি।'

শুভ করণ সিং এর মৃত্যুর প্রতিক্রিয়া কৃষকদের দুইটি ইউনিয়নের পক্ষ থেকে ক্ষুব্ধ বিবৃতি প্রকাশ করা হয়েছে। উভয় সংস্থাই পুলিশ ও কেন্দ্র সরকারকে এ ঘটনার দায় দিয়েছে।


এআইকেএসের বিবৃতিতে বলা হয়, 'পুলিশি পদক্ষেপের ফলে' শুভ করণ সিং নিহত হয়েছেন।

'এই হত্যার মাধ্যমে নিজেদেরকে "কৃষক-বান্ধব" হিসেবে দাবি করা মোদি সরকারের সহিংসতার আসল রূপ প্রকাশ পেয়েছে', বিবৃতিতে আরও বলা হয়।

বিবৃতির শেষে দাবি করা হয়, 'মনোহর লাল খট্টরের নেতৃত্বে হরিয়ানার বিজেপি সরকার বিক্ষোভরত কৃষকদের—যারা দিল্লির দিকে পদযাত্রা করছে—তাদেরকে শত্রুসেনার মতো বিবেচনা করছে এবং তাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধের মতো অভিযান পরিচালনা করছে।'


সংযুক্ত কৃষক মোর্চার (এসকেএম) বিবৃতিতে বলা হয়, '২০২১ সালের ৯ ডিসেম্বর এসকেএমের সঙ্গে সাক্ষরিত চুক্তির শর্তগুলো মেনে নিতে ব্যর্থ হয়েছে প্রধানমন্ত্রী ও তার নির্বাহী সংস্থাগুলো এবং চলমান সংকট ও ক্ষয়ক্ষতির জন্য একমাত্র তারাই দায়ী।'

শুভ করণ সিং ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যের ভাটিণ্ডা শহরের বাসিন্দা। কৃষক নেতা কাকা সিং কোত্রা বলেন, তার বাবার নাম চরণজিৎ সিং ও তিনি ভালো গ্রামে বাস করতেন। তরুণ এই কৃষকের দুই একর জমি ছিল। কম বয়সে তিনি তার মাকে হারালে তার দাদী তার লালনপালন করেন।


বিষয়:


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Developed with by
Top