সিডনী বুধবার, ২৭শে মে ২০২০, ১৪ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭


তামিমের লাইভে ক্রিকেটের পিছনের গল্প শোনালেন সাবেক অধিনায়করা


প্রকাশিত:
১১ মে ২০২০ ১৬:১৫

আপডেট:
১৩ মে ২০২০ ১৫:১৩

 

প্রভাত ফেরী: লকডাউনে অনলাইনের মাধ্যমে ভক্তদের জন্য প্রতিদিনই নিত্য নতুন কিছু নিয়ে আসছেন বাংলাদেশ ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল। প্রথমে বাংলাদেশের টি-টুয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহকে লাইভ ভিডিওতে শোনালেন ক্রিকেটের বাইরের গল্প। এরপরে একে একে মুশফিক, মাশরাফি,  রুবেল, তাসকিন, নাসিরকেও নিয়ে আসছেন নিজের ফেসবুকের লাইভে। শুনিয়েছেন ক্রিকেটের পিছনের গল্প। এবার নিয়ে আসলেন বাংলাদেশের সাবেক তিন অধিনায়ককে। হাবিবুল বাশার সুমন, খালেদ মাহমুদ সুজন ও বাংলাদেশ টেস্ট ক্রিকেটের প্রথম অধিনায়ক নাঈমুর রহমান দুর্জয়। আর এই লাইভে জানা গেল অধিনায়ক হিসেবে মাঠে ও মাঠের বাইরে সতীর্থদের সামলানো ছেলেখেলা নয়। যেসব অধিনায়ক এই কাজটি নিখুঁতভাবে করতে পারেন, দলকে তারা এক সুতোয় বেঁধে রাখতে পারেন। সাবেক তিন অধিনায়কের আড্ডায় জানা গেলো, কাদেরকে সামলানো খুব কঠিন কাজ ছিল!

লাইভে তিন অধিনায়ক খালেদ মাহমুদ, নাঈমুর রহমান ও হাবিবুল বাশারকে একসঙ্গেই এই প্রশ্ন করেন তামিম, ‘দলে কাদের সামলাতে আপনাদের সবচেয়ে বেশি কষ্ট হয়েছে?’

এমন প্রশ্নে মুখের হাসি আটকে রাখতে পারেননি কেউ-ই। খালেদ মাহমুদ হাসিমুখে হাবিবুল বাশারকে প্রস্তাব করলেন, ‘তুমিই বলো।’ বাশার বলতে গিয়েও থেমে গেলেন। বল এবার গেলো খালেদ মাহমুদের কোর্টে। তিনিই বললেন, ‘জাভেদ ওমর বেলিম।’

খালেদ মাহমুদের বলা শেষ না হতেই বাশারও হাসতে হাসতে মাহমুদের সঙ্গে একমত হলেন। ৪০টি টেস্ট ও ৫৯টি ওয়ানডে খেলা জাভেদ ওমরকে কেনই বা সামলানো কঠিন ছিল, তার ব্যাখ্যাও দিয়েছেন সাবেক দুই অধিনায়ক, ‘‘এমনিতে গুল্লু (জাভেদ ওমর) অনেক ভালো। কিন্তু নানা কিছু নিয়ে তার সমস্যা ছিল। ‘ওটা নাই কেন, এটা এমন কেন, ওভাবে করলেন না কেন।’ এইসব কিছু সামলানো খুব কঠিন ছিল।’’

এই দুইজনের কথা শেষ না হতেই নাঈমুর রহমান দুর্জয় হাসতে হাসতে বললেন, ‘ভাগ্য ভালো, আমাকে ও (জাবেদ ওমর) বেশি জ্বালানোর সুযোগ পায়নি। আমাকে বেশি বিরক্ত করেছে অপি (মেহরাব হোসেন অপি)।’

ওয়ানডেতে বাংলাদেশের প্রথম সেঞ্চুরিয়ান হিসেবে ইতিহাস হয়ে আছেন মেহরাব হোসেন অপি। ব্যাটিং স্কিলও অসাধারণ। ১৯৯৯ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশের ওয়ানডে ক্রিকেট ইতিহাসের প্রথম সেঞ্চুরিটি করেছিলেন। অপির ব্যাপারে দুর্জয় বলেছেন, ‘অপিতো ইচ্ছে করে অনেক কিছু করতো। খুব দুষ্টু ছিল। তাই ওকে সামলানো অনেক কঠিন ছিল। তবে সে খুব ভালো খেলোয়াড়, দারুণ টিমম্যান ছিল।’

 


বিষয়:


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top