সিডনী বুধবার, ২১শে অক্টোবর ২০২০, ৬ই কার্তিক ১৪২৭


ফিরেই নায়ক গেইল, শেষ বলে জয় তুলে নিল পাঞ্জাব


প্রকাশিত:
১৬ অক্টোবর ২০২০ ১৭:০৭

আপডেট:
২১ অক্টোবর ২০২০ ০৭:১২

 

প্রভাত ফেরী: নাটকীয়ভাবে শেষ বলে জয় তুল নিল কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। বৃহস্পতিবার শারজায় যুজভেন্দ্র চহালকে ছয় মেরে জয় ছিনিয়ে আনলেন নিকোলাস পুরান। রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরকে ৮ উইকেটে হারাল তারা। ১৭২ রানের জয়ের লক্ষ্য তাড়া করে দুই উইকেটে ১৭৭ তুলল ব্যাঙ্গালোর। এ বারের আইপিএলে এটা লোকেশ রাহুলের দলের দ্বিতীয় জয়।

এই জয়ে বড় অবদান আছে ক্রিস গেইলেরও। এদিনই প্রথম আইপিএলে ব্যাট করতে নেমে হাফ-সেঞ্চুরি করেন তিনি। ৪৫ বলে ৫৩ করে হলেন রান আউট। অধিনায়ক রাহুল ৪৯ বলে অপরাজিত থাকলেন ৬১ রানে। তবে যত সহজে জেতার কথা ছিল, তত সহজে জয় এলো না। শেষ ওভারে পঞ্জাবের দরকার ছিল ২ রান। চহালের প্রথম চার বলে এসেছিল মাত্র ১ রান। পঞ্চম বলে রান আউট হন গেইল। প্রচণ্ড উত্তেজনা তখন গ্রাস করেছিল দুই দলকেই। শেষ বলে রান না এলে ম্যাচ গড়াত সুপার ওভারে। কিন্তু পুরান এগিয়ে এসে ফুলটস করে নেন চহালের ডেলিভারি। তাঁর শট লং অনে থাকা ক্রিস মরিসের বাড়ানো হাতের নাগাল পেরিয়ে ছয় হয়। জিতে যায় পাঞ্জাব।

এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ঝড়ো গতিতে করেছিল আরসিবির দুই ওপেনার দেবদূত পাডিক্কেল আর অ্যারন ফিঞ্চ। পাডিক্কেল ১২ বলে ১৮ আর ফিঞ্চ ১৮ বলে করেন ২০ রান। ৬.৩ ওভারেই ৬২ রান তোলে এই জুটি। কিন্তু এরপরই চিত্রটা পাল্টে পাঞ্জাবের হয়ে যায়। ফিঞ্চকে ২০ রানে ফেরান মুরুগান অশ্বিন। আর্শদ্বীপ সিংয়ের বলে আউট হন পাডিক্কেল। দলের হাল ধরেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

উইকেটে কোহলি থাকলেও রানের গতি মন্থর হয়ে যায়। ওয়াশিংটন সুন্দরকে ১৩ রানে ফেরান অশ্বিন। শিভাম দুবেকে ফেরান জর্ডান। আর আগে ১৯ বলে ২৩ রানের কেমিওইনিংস খেলেন দুবে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উইকেট দুটি নেন মোহাম্মদ সামি। সামির বলে মাত্র ২ রানে আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন ব্যাঙ্গালুরুর মারকুটে ব্যাটসম্যান এডি ভিলিয়ার্স।

বিরাট কোহলিকেও ফেরান সেই পেসার সামি। তার বলে পাঞ্জাব অধিনায়কের ক্যাচে পরিণত হন ব্যাঙ্গালুরু অধিনায়ক। ম্যাচের ১৮তম ওভারে আউট হওয়ার আগে কোহলি ৩৯ বলে করেন ৪৮ রান। তবে শেষ দুই ওভারে ক্রিস মরিসের বিধ্বংসী ইনিংস দলের পুজিকে ১৭০ রান পার করে দেয়। মাত্র ৮ বলে ১টি চার আর ৩টি ছক্কার মারে ২৫ রান তোলেন মরিস। ৫ বলে ১০ রানে অপরাজিত থাকেন উদানা। এই যুগল ১৩ বলে যোগ করা ৩৫ রানের পর নির্ধারিত ২০ ওভারে ব্যাঙ্গালুরুর সংগ্রহ গিয়ে দাঁড়ায় ৬ উইকেটে ১৭১ রান। পাঞ্জাবের বোলারদের মধ্যে ২টি করে উইকেট নেন মোহাম্মদ সামি আর মুরুগান অশ্বিন।


বিষয়:


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top