সিডনী বুধবার, ১৫ই জুলাই ২০২০, ১লা শ্রাবণ ১৪২৭

লজ্জা: আহসান হাবীব


প্রকাশিত:
১৯ এপ্রিল ২০২০ ১৭:২৯

আপডেট:
২৩ এপ্রিল ২০২০ ১৫:৪৩

 

আমাদের নিশ্চয়ই মনে আছে ২০০১ সালে তালেবানরা আফগানিস্থানে মহামতি বুদ্ধের পৃথিবীর সবচেয়ে বিশাল ভাস্কর্যটি মিসাইল দিয়ে গুড়িয়ে দিয়েছিল, সেটা এতই বড় ছিল যে তারা একদিনে সেটা ভেঙে ফেলতে পারে নি। বেশ কিছুদিন ধরে তারা ভেঙ্গেছিল। পাহাড় কেটে তৈরী করা সেই বিশাল বুদ্ধের ভাস্কর্যটি ছিল পৃথিবীর একটা অন্যতম অসাধারন শিল্পকর্ম (১৭৪ ফুট উচ্চতা, ৫ম শতকে নির্মিত)। সেই শিল্পটি কে পৃথিবীতে থেকে মুছে ফেলেছিল তালেবানরা। তখন এক ইরানী দার্শনিক বিষন্ন হয়ে বলেছিলেন। ‘ তালেবানরা মহামতি বুদ্ধকে ভাঙ্গেনি। বুদ্ধ নিজেই গভীর লজ্জায় ভেঙে পড়েছেন...। ’
কি সেই লজ্জা মহামতি বুদ্ধের?
( তিনি কিন্তু ভেঙ্গে পড়েছিলেন বর্তমান রোহিঙ্গা ইস্যুর অনেক আগেই। নইলে হয়ত দ্বিতীয়বার ভেঙ্গে পড়তেন!! )
যাইহোক গত পঁচিশ বছরে পৃথিবী জুড়ে এত উন্নয়ন... এত কিছু হয়েছে , এত টেকনোলজির জয় জয়কার, স্মার্ট ফোন ফোর জি ফাইভ জি সিক্স জি... কিন্তু পৃথিবীর পরিবেশের কথা কি একবারও ভেবেছি আমরা ? আমরা কি আমাদের এই একটাই মাত্র পৃথিবীর কথা ভেবে কিছু করেছি? সাবধান হয়েছি? পরবর্তী প্রজন্মের কথা ভেবে একটা নতুন কোনো এন্টিবায়েটিক (প্রথম জেনারেশন) কি বের করতে পেরেছি গত পঁচিশ বছরে? অথচ স্মার্ট ফোনের মডেল চেঞ্জ হয়েছে ২৫ হাজারবার। কোনো এক দেশের একজন বিখ্যাত রিসার্চারতো বলেই ফেলেছেন ‘ফুটবলার মেসি রোনালডোকে আপনারা প্রতি মাসে মিলিয়ন মিলিয়ন ইউরো ডলার দিবেন আর একজন গবেষককে দিবেন ১৮০০ ইউরো!! এখন তাহলে মেসি রোনালডোর কাছেই যান...! ’ (আমি অবশ্য রোনালডোর ভক্ত!)
এখন যে পৃথিবী জুড়ে সবাইকে মাস্ক পরে মুখ ঢেকে ঘুরতে হচ্ছে, কেন? সেই ইরানী দার্শনিক থাকলে হয়ত বলতেন ‘ আমরা আসলে করোনা ভাইরাসের জন্য মাস্ক পরে মুখ ঢাকিনি, আমরা লজ্জায় মুুখ ঢেকে ঘুরছি। পৃথিবীকে আমাদের এই অপরাধী মুখ দেখাতে লজ্জা হচ্ছে। ’ 

 

 

মানুষ যখন হাসে তখন নাকি তার মুখের ৩৬টি পেশির ব্যায়াম হয়, আর যখন কাঁদে তখন ব্যায়াম হয় ১৮টি পেশীর তার মানে দিনে একবার অন্তত হাসুন (উন্মাদ পড়ে!?) নইলে দুবার কাঁদুন (ঐ উন্মাদ পড়েই!!) তাহলে ফেসিয়াল এক্সারসাইজ হবে । আর মানুষ যখন লজ্জা পায়, তখন কিসের ব্যায়াম হয়? তখন আসলে ব্যায়াম হয় বিবেকের। এই মহামারিতে সমগ্র মানব জাতির মনে হয় একটাই শিক্ষা হয়েছে, তার বিবেক জেগে উঠেছে (কিছুটা হলেও)। যদি আমরা ঘুরে দাড়াতে পারি, যদি আমরা কারোনাকে পরাজিত করে সত্যিই ঘুরে দাড়াতে পারি, তাহলে শুরু হবে এক নতুন পৃথিবী... এটা কি আমরা বুঝতে পারছি?
মনে রাখতে হবে প্রকৃতির নিয়ম কখনো পাল্টায় না। কিন্তু প্রকৃতি বদলে যায় কখনো কখনো। সেই বদলে যাওয়া প্রকৃতিতে শুরু হবে আমাদের নতুন যাত্রা। বিপ্লবী চে গুয়েভারোর সেই কথাটা নিশ্চয়ই আমাদের মনে আছে ‘ আমি এখন পরাজিত হয়েছি, তার মানে এই নয় যে বিজয় অসম্ভব...! ’

 

লেখক: আহসান হাবীব
কার্টুনিস্ট/ সম্পাদক
উম্মাদ, স্যাটায়ার কার্টুন পত্রিকা
 

এই লেখকের অন্যান্য লেখা



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top